চোরে কি কখনো শোনে ধর্মের কাহিনি!

চোরে কি কখনো শোনে ধর্মের কাহিনি!

চোরে কি কখনো শোনে ধর্মের কাহিনি!

:: মুজতবা খন্দকার :: একজন সরকার সমর্থক সিনিয়র সাংবাদিক রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো: শাহেদের সাথে প্রধানমন্ত্রীর ছবি দেখে মন্তব্য করেছেন,ওর…

বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ইতিকথা এড়িয়ে গেছেন

বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ইতিকথা এড়িয়ে গেছেন

“আমি মন্ত্রী (তথ্য) হয়ে দেখি মন্ত্রনালয়ের এক সিএসপি সচিব অসুস্থ হয়ে ছুটি নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এ সময় যুগ্ম সচিব…

শেখ মুজিব নিজের ছেলে, ভাগ্নেকে কন্ট্রোল করতে পারতেন না

শেখ মুজিব নিজের ছেলে, ভাগ্নেকে কন্ট্রোল করতে পারতেন না

“… আর একদিন বঙ্গবন্ধুর ডাক এলো। হাসিমুখে জিজ্ঞেস করলেন, ‘জাতিসংঘে যাবেন’? অনুরূপ হাস্যোজ্জল মুখে উত্তর দিলাম ‘না’। বললেন, ‘কেন’? বললাম, ‘বঙ্গবন্ধু আমার দূর্বল কাঁধে অনেক ভারি বোঝা চাপিয়েছেন। ওসব দেশে বিলাস ভ্রমণ করা আমার পক্ষে সম্ভব নয়’। বললেন, ‘সবাই যে আপনার কথা বলেছে’। বললাম, ‘আমার চেয়েও যোগ্য মহিলাকে এনে দিতে পারি – যদি আপনি আমাকে অনুমতি করেন’। অনুমতি দিলেন। কথা হলো পরদিন সকাল দশটায় অ অমি আমার মনোনীত প্রার্থী নিয়ে বঙ্গবন্ধুর কাছে আসবো। পরদিন সকাল দশটায় আমি অ্যাডভোকেট জেবুন্নেসা রহমানকে নিয়ে গণভবনে গেলাম। জেবুন্নিসার বয়স তখন পঁয়ত্রিশ হবে। সুন্দরী শুধু নয় একান্তভাবেই অমায়িক স্বভাবের অধিকারী এবং তখনই হাইকোর্টে সুনাম অর্জন করেছে। জেবুন্নেসাকে দেখে বঙ্গবন্ধুর মুখ হঠাৎ ম্লান হয়ে গেল। বললেন, ‘আপা আমি আমার কথা রাখতে পারলাম না। আপনি যাবেন না শুনে বরিশালের শামসুল হকের স্ত্রী রোকেয়া হলের হাউজ টিউটর মেহেরুন্নেসা চৌধুরীকে যাবার জন্য ধরেছে কেউ কেউ। শামসুল হককে আমি নমিনেশন দিতে পারিনি, তাই ওর বউকে পাঠালে ওর আর কোন অভিযোগ থাকবে না’। আমি স্তম্ভিত হয়ে গেলাম। এই সামান্য ব্যাপারে বঙ্গবন্ধু এতো দূর্বল হয়ে গেলেন? মেহেরুন্নেসাকে আমি খুবই ভালো করে চিনি, তার বিরুদ্ধে আমার কোনো অনুযোগ নেই। কিন্তু জাতিসংঘে প্রতিনিধিত্ব করবার মতো তার কোনো যোগ্যতা আছে বলে আমার মনে হলো না। বিশেষত জেবুন্নেসার তুলনায়। আমি নি:সন্দেহে আঘাত পেলাম। এরপরও দেখেছি একজনকে একটা দেওয়া যায়নি, তার স্ত্রী-পুত্রকে আরেকটা দিয়ে তুষ্ট করবার জন্য বঙ্গবন্ধুকে স্বার্থান্বেষীরা (?) বাধ্য করেছে। একদিকে সৎ নিষ্ঠাবান লোকদের তার কাছ থেকে ক্রমাগত দূরে সরিয়ে নিয়ে গেছে আর নিজেদের স্বার্থের সহায়ক লোভী স্বার্থপরদের ক্রমাগত তার কাছে ভিড়িয়েছে। তারাই তো অনেক পাবার আশায় বঙ্গবন্ধুকে চিরতরে বিদায় দিয়েছে। ডালিম নুররা তো তুচ্ছ উপলক্ষ মাত্র। ষড়যন্ত্রকারীরাতো আওয়ামী লীগের ক্ষমতার প্রাসাদে থেকে ক্রমাগত বঙ্গবন্ধুকে দূর্বল করেছে, দেশের চিন্তায় ভীত সন্ত্রস্ত করেছে এবং শেষ পর্যন্ত নিশ্চিহ্ন করে গদিতে বসেছে। রাষ্ট্রপতি হয়েছে, মন্ত্রী হয়েছে। ডালিম হুদা নুর তো মন্ত্রিত্বের গদি অধিকার করেনি, ওরা ঘটনাচক্রে চিরকালের মতো দেশ থেকে বিতাড়িত হয়েছে। প্রসঙ্গক্রমে অনুরূপ আরেকটা ঘটনার কথা বলি। এ ঘটনা ঘটেছিল বঙ্গবন্ধুর প্রশাসনের একেবারে শেষদিকে। আমাদের অত্যন্ত শ্রদ্ধেয় নেতা শেখ মুজিবের কিছু পারিবারিক ব্যাপারে দূর্বলতা ছিলো।নিজের ছেলে, নিজের ভাগ্নেকে তিনি কন্ট্রোল করতে পারতেন না।তাঁর যে ভাই খুলনায় মারা গিয়েছিলেন, আমি শুনেছি লোকের মুখে সেখানকার লোকেরা নাকি  আনন্দে মিলাদ পড়িয়েছে। তিনি এতোই অত্যাচারী ছিলেন। এসব বলতে খারাপ লাগে, কষ্ট লাগে।কিন্তু এমন ঘটনা ঘটেছে তো। তারপর তাঁর ভাগ্নে শেখ মণিকে তো অনেকে পছন্দ করতো না।তাঁর আরও আরও আত্মীয়স্বজন এগুলো যে করতো – অনেককে অত্যাচার করা, অন্যায় সুযোগ সুবিধা  দেওয়া – এগুলো সে সময়কার লোকেরা সবাই জানে। কিন্তু শেখ স্নেহে অন্ধ হয়ে এগুলোর কিছু করেননি। বঙ্গবন্ধু ডেকে পাঠালেন গণভবনে। দুরু দুরু বক্ষে গেলাম। কারণ কিছুদিন আগে বাংলা একাডেমী থেকে পদত্যাগ করেছি ওর অনুমতি না নিয়ে। ভয় ছিল হয়তো বা ভর্তসনা করবেন। গিয়ে দেখলাম না, বেশ খোশমেজাজেই আছেন। বললেন, ‘আপা মেক্সিকো কনফারেন্সে যেতে হবে। আন্তর্জাতিক মহিলা কংগ্রেস। আমাদের টাকা পয়সা নেই। এখান থেকে দু’জন যাবে আর ন্যুইয়র্ক থেকে কনসাল জেনারেল আপনাদের সঙ্গে যাবে’। আমি জিজ্ঞাসু চোখে তাকাতেই বললেন,…

হুমায়ূন আহমেদের উত্থানের বীজ রোপণ করেছিলেন আহমদ ছফা

হুমায়ূন আহমেদের উত্থানের বীজ রোপণ করেছিলেন আহমদ ছফা

:: নূরুল আনোয়ার :: … ছফা কাকাকে আহমদ শরীফ সাহেব খুব স্নেহ করতেন এবং সম্মানও করতেন। তাঁর মেধার প্রতি ছিল…

লতিফুর রহমান স্মরণে

লতিফুর রহমান স্মরণে

:: মারুফ কামাল খান :: দেশের বড় এক শিল্প-বাণিজ্য গোষ্ঠী ট্রান্সকম-এর চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান ছিলেন বেগম খালেদা জিয়ার আত্মীয়। সম্পর্কও…

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিপক্ষে ছিলেন

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিপক্ষে ছিলেন

… তাকে (খান মোহাম্মদ শামসুর রহমান ওরফে ডক্টর জনসন, সিএসপি। আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার আসামী) জিজ্ঞেস করেছিলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘স্বর্ণযুগ’ বা সেরকম কোন গৌরবদীপ্ত সময় হিসেবে…

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কালের কণ্ঠের ভিত্তিহীন প্রতিবেদন প্রসঙ্গে

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কালের কণ্ঠের ভিত্তিহীন প্রতিবেদন প্রসঙ্গে

:: মুজতবা খন্দকার :: বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, তার বিরুদ্ধে কালের কন্ঠে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনকে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও মনগড়া…

আহমদ ছফার মুক্তিযুদ্ধ ও বাস্তবতা

আহমদ ছফার মুক্তিযুদ্ধ ও বাস্তবতা

আজ বাংলাসা‌হি‌ত্যের উজ্জ্বল নক্ষত্র অকালপ্রয়াত  মনীষী লেখক আহমদ ছফার ৭৭তম জন্মবা‌র্ষিকী। এ মনীষী লেখ‌কের জন্ম‌দি‌নে লা‌খো পাঠ‌ক এবং অনুরাগীর স‌ঙ্গে আ‌মিও…

নাসিমের মৃত্যু, মোহাম্মদ এ আরাফাত ও জনগণের পুঞ্জিভূত ঘৃণা

নাসিমের মৃত্যু, মোহাম্মদ এ আরাফাত ও জনগণের পুঞ্জিভূত ঘৃণা

:: পিনাকী ভট্টাচার্য :: মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যু ও রাজাকার শাবকদের ‘উল্লাস’ শিরোনামে মোহাম্মদ এ আরাফাত ফ্যাসিস্টদের দালাল মিডিয়া বাংলানিউজ২৪ এ…